শ্রমিক কর্মচারী নিয়োগ এবং অব্যাহতির নীতিমালা

শ্রমিক কর্মচারী নিয়োগ এবং অব্যাহতির নীতিমালা

শ্রমিক কর্মচারী নিয়োগ এবং অব্যাহতির নীতিমালা নিন্মরুপঃ

১.    প্রত্যেক চাকুরীতে নির্দিষ্ট করে পদের উল্লেখ থাকতে হবে।এছাড়া শিক্ষাগত যোগ্যতা ,অভিজ্ঞতা এবং স্বাস্থ্যগত অবস্থা প্রত্যেক চাকুরীর সাথে উল্লেখ থাকবে।

২.    প্রত্যেক বিভাগের প্রধান তার যতজন লোক লাগবে তার উল্লেখ করে লিখিত ভাবে মানবসম্পদ বিভাগকে জানাবে ।

৩.   ব্যবস্থাপক মানব সম্পদ বিভাগ বিষয়টি যাচাই করার পরে লোক নিয়োগের ব্যপারে সুপারিশ সহকারে পরিচালক অথবা ব্যবস্থাপনা পরিচালকের নিকট পাঠাবেন ।উল্লেখ থাকে যে এধরনের সুপারিশ পাঠানো হবে শুধুমাত্র কোন বিভাগে নির্বাহী অথবা এর উপরের কোন পদে নিয়োগ দেওয়া হলে।অনুমোদন পাওয়ার পরে সংবাদপত্রে,বি ডি জবস / পোষ্টারিং -এর মাধ্যমে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়।

৪.    নির্বাহী পদের নীচে কোন বিভাগে লোক নিয়োগ করা হলে ব্যবস্থাপক মানব সম্পদ বিভাগ ফ্যাক্টরীর ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে নিয়োগের ব্যবস্থা নিবেন।

৫.    কোন কোর সময় কিছু নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি স্থানীয় পত্রিকা অথবা অন্য কোন ভাবে করা হয়।আবার সময় সময় চাকুরীপ্রাথীরা চাকুরীর খোজে ফ্যাক্টরীর গেটে আসেন। এছাড়া আরও কোনভাবে কেউ চাকুরীর খোজে আসলে তাকে তার জীবন বৃত্তান্ত জমা দিতে বলা হয়।

৬.   প্রার্থীকে পরবর্তীতে নির্বাচনী কমিটির সামনে উপস্থিত হয়ে উন্টারভিউ দিতে বলা হয়।ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত মোতাবেক এই ইন্টারভিউ নির্বাচনী কমিটি অথবা কমিটির কোন একজন নিতে পারে।।যদি প্রার্থীকে তার প্রার্থীত পদের জন্য উপযুক্ত বিবেচনা করা হয় এবং তাকে চাকুরী পদানের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় তখন ব্যবস্থাপক মানব সম্পদ বিভাগ প্রার্থীকে চাকুরীর নিয়ম ও শর্তাবলী জানিয়ে একটি নিয়োগপত্র প্রদান করেন।চাকরী  হওয়ার পরে প্রত্যেকের প্রদেয় তথ্য বিবরনী যাচাই করা হয়।

৭.    চাকুরীর জন্য নির্বাচিত হওয়ার পরে চাকুরী প্রার্থীকে প্রাথমিক ভাবে তিন মাসের জন্য নিয়োগ দেওয়া হয়।যা তার প্রবেশনারী পিরিয়ড হিসাবে গন্য হবে।তার কাজ সন্তোষজনক হলে তার বিভাগীয় প্রধানের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে তাকে স্থায়ীভাবে নিয়োগ দেওয়া হয়।

৮.   মানব সম্পদ বিভাগ সমন্ত চাকুরীরত ব্যক্তির ব্যক্তিগত ফাইল সংরক্ষন করে প্রত্যেক ফাইলে প্রত্যেক ব্যক্তির জীবন বৃত্তান্ত ,শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্র,চাকুরীর শর্তাবলী,পূর্বের চাকুরীর অভিজ্ঞতা ও যোগদানপত্র থাকবে।এছাড়া যদি কখনও কোন বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয় অথবা কখনও কোন প্রশিক্ষন দেওয়া হয় তার তথ্যাদি উল্লেখ থাকবে।

৯.   যদি কখনও কোন শ্রমিক কর্মচারীকে চাকুরী হতে অব্যাহতি বা বরখাস্ত করা হয় তবে তা প্রচলিত শ্রম আইন অনুযায়ী করা হয়। এক্ষেত্রে যে সমস্ত বিষয় অনুসরন করা হয় তা নিম্নরূপ :

ক . টার্মিনেশন অথবা অব্যাহতি : যদি কোন শ্রমিক / কর্মচারীকে কোম্পানীতে আর প্রয়োজন না হয় তাহলে কোম্পানীর মালিক প্রথমেই তাকে ১২০ দিনের নোটিশ প্রদান করেন।

খ . ডিসমিস : অসদাচারনের জন্য প্রচলিত আইন অনুযায়ী এব্যবস্থা নেওয়া হয়।

গ . ডিসচার্জ : শারীরিক ও মানসিক অসুস্থতার জন্য রেজিষ্টার্ড ডাক্তার কর্তৃক প্রত্যাখ্যাত হলে ডিসচার্জ করা হয়।

ঘ . পদত্যাগ : যদি শ্রমিক কর্মচারীদের মধ্যে কারও চাকুরী ছেড়ে যাওয়ার প্রয়োজন হয় তাহলে ৬০ দিন পূর্বে নোটিশ দিতে হবে।

ঙ . অবসরগ্রহন : যদি কোন শ্রমিক কর্মচারীর চাকুরীর বয়স ৫৭ বৎসর পূর্ন হয় তখন সেই শ্রমিক / কর্মচারীকে অবসর প্রদান করা হয়।যদি তাদের কেউ শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ থাকে তবে ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত মোতাবেক তার চাকুরীর মেয়াদ বাড়ানো যাবে।

১০.যদি কেউ উপরোক্ত বিষয়গুলির আওতায় চাকরী থেকে চলে যায় তবে তার আইনগত পাওনাদী দিয়ে দেওয়া হবে।

১১.চাকুরী ছেড়ে চলে যাওয়ার সময় শ্রমিক কর্মচারীকে কোম্পানী কর্তৃক সরবরাহকৃত আই ডি কার্ড , হাজিরা কার্ড এবং অন্য আরও অন্য কিছু দেওয়া থাকলে তা জমা দিবে।কোম্পানী কর্তৃক সরবরাহকৃত কোন জিনিষ কোন শ্রমিক কর্মচারী চাকুরী ছেড়ে চলে যাওয়ার সময় যদি ফেরত না দেয় তবে কোম্পানী তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে পারবে।

১২.চুক্তিভিত্তিক অস্থায়ী এবং পার্ট টাইম চাকুরীর জন্য উপরোক্ত বিষয়গুলি প্রযোজ্য হইবেনা।

পরবর্তীতে যদি কোন নতুন নিয়ম বা আইন প্রনীত হয় তবে গোল্ডস্টার কর্তৃপক্ষ তা আগামী ৬ মাসের মধ্যে তা সংযোজন করবে।

Share This Post

Related Post