LEAVE POLICY – ছুটির নীতিমালা

LEAVE POLICY – ছুটির নীতিমালা

গোল্ডস্টার গার্মেন্টস লি: কর্তৃপক্ষ মনে করে যে শ্রমিকদের সুযোগ সুবিধা প্রদানের জন্য একটি নির্দ্ধারিত ও ফলপ্রসু ছুটির নীতিমালা (Leave Policy) থাকা প্রয়োজন। এজন্য কর্তৃপক্ষ সবসময়ই স্থানীয় শ্রম আইন অনুসরন করেন। শ্রমিকের সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধির লক্ষ্যে কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদেরকে বিভিন্ন প্রকার ছুটি প্রদান করে থাকেন।

ছুটির পদ্ধতি:

১. নৈমিত্তিক ছুটি:   বৎসরে ১০ দিন (পূর্ন বেতনে)

২. বাৎসরিক ছুটি: বৎসরে ২০ দিন প্রতি ১৮ দিনে ১ দিন (চাকুরি ১ বৎসর পূর্ন হওয়া সাপেক্ষে)

৩. অসুস্থতা জনিত ছুটি: বৎসরে ১৪ দিন (পূর্ন বেতনে)

৪. উৎসব ছুটি: বৎসরে ১২ দিন (পূর্ন বেতনে)

 

নৈমিত্তিক ছুটি:

বাংলাদেশের শ্রম আইনের ১১৫ধারা অনুযায়ী একজন শ্রমিক প্রতি বৎসরে পূর্ন মজুরী সহ

১০ (দশ) দিনের নৈমিত্তিক ছুটির অধিকারী হবেন।কোন শ্রমিক কোন কারনে উক্ত ছুটি ভোগ না করলে উহা পরবর্তী বৎসরে ভোগ করা যাবেনা অর্থাৎ নৈমিত্তিক ছুটি পরবর্তী বৎসরের জন্য জমা থাকেনা।নৈমিত্তিক ছুটি চাকুরীতে যোগদানের দিন হতে কার্যকর করা যায়।

বাৎসরিক ছুটি:

বাংলাদেশের প্রচলিত শ্রম আইনের ১১৭ ধারা অনুযায়ী যে কোন শ্রমিক প্রতি ১বৎসরে ১৮ কর্মদিবসের জন্য ১দিন হিসাবে ২০ দিন বাৎসরিক ছুটি ভোগ করতে পারবেন। বাৎসরিক ছুটি পেতে হলে একজন শ্রমিককে কমপক্ষে ১বৎসর চাকুরি পূর্ন করতে হবে।

যদি কোন শ্রমিক কোন কারনে বাৎসরিক ছুটি ভোগ করতে না পারে তাহলে উক্ত বৎসরের পাওনা ছুটি পরবর্তী বৎসরের ছুটির সাথে জমা করা হবে । কিন্তু কোনভাবেই পাওনা ছুটি ৪০ দিনের বেশী জমা করা যাবেনা।

অসুস্থতাজনিত ছুটি:

বাংলাদেশের প্রচলিত শ্রম আইনের ১১৬ ধারা অনুযায়ী যে কোন শ্রমিক প্রতি ১বৎসরের জন্য পূর্ন মজুরীতে ১৪ দিনের অসুস্থতাজনিত ছুটি পাইবার অধিকারী হইবেন। উক্তরুপ কোন ছুটি মনজুর করা হবেনা যদি না মালিক কর্তৃক নিযুক্ত রেজিষ্টার্ড চিকিৎসক অথবা উক্ত চিকিৎসকের অবর্তমানে অন্য কোন রেজিষ্টার্ড চিকিৎসক পরীক্ষান্তে এই মর্মে প্রত্যয়ন করেন যে সংশ্লিষ্ট শ্রমিক অসুস্থ এবং তাহার চিকিৎসা বা আরোগ্যের জন্য প্রত্যয়ন পত্রে উল্লেখিত সময় ছুটির প্রয়োজন। ১১৬ ( ২ ) ধারা অনুযায়ী উক্তরুপ ছুটি জমা থাকিবেনা এবং কোন বৎসর ভোগ না করিলে পরবর্তী বৎসর উহা আর ভোগ করা যাইবেনা।

উৎসব ছুটি:

বাংলাদেশের প্রচলিত শ্রম আইনের ১১৮( ১ ) ধারা অনুযায়ী যে কোন শ্রমিক প্রতি পঞ্জিকা বৎসরে ১২ দিনের মজুরী সহ উৎসব ছুটি পাইবেন।১১৮ ( ২ ) ধারা অনুযায়ী বিধি দ্বারা নির্দ্ধারিত ভাবে মালিক উক্ত ছুটির দিন ও তারিখ নির্দ্ধারন করিবেন এবং উহা নোটিশের মাধ্যমে সকলকে জানানোর ব্যবস্থা করবেন। উৎসব ছুটি নিম্ন রূপ :

ক) পর্ব/উৎসব ছুটি (ঋবংঃরাধষ খবধাব)ঃ-

প্রত্যেক কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শ্রমিক – পর্ব উপলক্ষে প্রতি বৎসরে নূন্যতম ১২ দিন পর্ব ছুটি ভোগ করার প্রধিকার রাখেন। কিন্তু কোম্পানীর প্রচলিত বিধি মোতাবেক নিম্নোক্ত পর্ব ছুটি ভোগ করে থাকেন ঃ

একুশে ফেব্র“য়ারী (শহীদ দিবস) ০১ দিন
২৬ শে মাচর্ (স্বাধীনতা দিবস ) ০১ দিন
ঈদ-উল-ফিতর ০৩ দিন
ঈদ-উল-আযহা ০৩ দিন
১লা মে (মে দিবস) ০১ দিন
মহরম ০১ দিন
শবেই বরাত ০১ দিন
১৬ই ডিসেম্বর(বিজয় দিবস) ০১ দিন

মোট    ১২ দিন

উপরে উল্লিখিত ছুটি সমূহের মধ্যে মুসলিম পর্বের ছুটি সমূহ চাঁদ দেখার উপর নির্ভরশীল।

Share This Post

Related Post